আজ- বুধবার, ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Shotto Barta Logo

শিরোনাম

নাটোরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ !!

সত্যবার্তা ডেস্ক :

নাটোরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া স্কুলছাত্রীকে গণ ধর্ষণের অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে নটোর সদর থানা  পুলিশ । মূল আসামী মোঃ তামিম বর্তমানে পলাতক আছেন বলে জানান নাটোর সদর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা মো. মোবারক হোসেন বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও দুইজনের বিরুদ্ধে নাটোর সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছন।

 

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে নাটোর সদর উপজেলার কাফুরিয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওর্য়াডের চাঁদপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। গ্রেফতারকৃতরা  হলেন, নাটোর সদর উপজেলার মাটিয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মো. আব্দুল মজিদ (২৬) এবং চাঁদপুরের সোনাউল্লার ছেলে ভ্যান চালক মো. সিরাজুল ইসলাম (৩০)।

 

 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার তানোরের একটি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর স্কুল ছাত্রীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে নাটোর সদর উপজেলার চাঁদপুর এলাকার তামিম নামে এক ছেলের পরিচয় হয়। পরে এক বছর  থেকে তাদের মধ্য প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২ টার দিকে তামিম ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সদর উপজেলার কাফুরিয়া ইউনিয়নের চাঁদপুর (পাবনা পাড়া) এলাকায় নিয়ে আসে। পরে ওই স্কুলছাত্রীকে বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে রাত ৯ টার দিকে চাঁদপুর বিলে জনৈক মোঃ গনির কলাবাগানে নিয়ে গিয়ে প্রধান অভিযুক্ত মোঃ তামিম একাধিক বার ধর্ষণ করে।

 

পরদিন (বুধবার) সকালে তামিম তার বন্ধু মজিদের কাছে ওই স্কুলছাত্রীকে  বাসায় পৌছে দেওয়ার জন্য হস্তান্তর করেন । এসময় মজিদ তাকে একটি বাড়িতে নিয়ে গিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করেন ভিকটিম । বুধবার বেলা ১১ টার দিকে মজিদ শহরের বনবেলঘরিয়া বাইপাস রাজশাহী গামি বাসে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় স্কুল ছাত্রীকে দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে ওই স্কুলছাত্রীর পরিবারকে খবর দেওয়া হয় 

 

নাটোর সদর থানার কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসামী মজিদ ও সিরাজুলকে গ্রেফতার করে। মূল অভিযুক্ত তামিম বর্তমানে পালাতক আছেন, তাকে ধরতে পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

 

এ বিষয়ে অভিযুক্ত তামিমের বাবা মোঃ আবুল কালাম “দৈনিক সত্যবার্তা” কে বলেন, আমার ছেলে যদি এই অপকর্মের সাথে জড়িত থাকে তাহলে আইনের মাধ্যমে তার শাস্তি হোক । আর যদি মেয়েটির সাথে প্রেম বা কোন অবৈধ সম্পর্ক থাকে তাহলে মেয়েটিরও তো ভবিষ্যৎ বলে কিছু আছে। তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে যদি বিয়ের ব্যবস্থা করা যায় তাতে আমার কোন আপত্তি নেই।

 

নাটোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভিকটিম স্কুল ছাত্রী মোছাঃ চাম্পা (১৬) খাতুনের সাথে কথা বলে জানা যায় , তিনি প্রতারনার স্বীকার হয়েছেন । তিনি উক্ত ঘটনার সাথে যারা জরিত তাদের কঠিন শাস্তির দাবি করেন এবং প্রেমিক মোঃ তামিম যদি তাকে বিয়ে করতে চান বা বাংলাদেশ সরকার বা প্রশাসন যদি তামিমের সাথে সংসার করার সুযোগ করে দেন, তাহলে তিনি সব ভুলে তামিমের সাথে সংসার করতে রাজি আছেন বলেও জানান।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

এই রকম আরোও খবর