আজ- বুধবার, ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Shotto Barta Logo

শিরোনাম

নাটোরে শালিশী বৈঠকের  কুপিয়ে জখম

সত্যবার্তা ডেস্ক:

নাটোরে শালিশী বৈঠকের মধ্যে একজনকে কুপিয়ে জখম|

 

 

নাটোর সদর উপজেলার দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের ছোট হরিশপুর গ্রামের মোঃ মতিউর রহমান (বাবু) নামের এক ব্যবসায়ী ও আইয়ুব নামের একজন এর পাশাপাশি বাড়ি হওয়াতে গত ২৫-০৩-২০২২ ইং তারিখে রাস্তা নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে হাতাহাতি হয়। আইয়ুব এর খালা মঞ্জুয়ারা হাতাহাতি থামানোর চেষ্টার সময় পড়ে গিয়ে আহত হয়। স্থানীয়রা মঞ্জুয়ারা কে চিকিৎসার জন্য নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। স্থানীয়রা সংঘাতের আভাস পেলে নাটোর থানায় অবগত করলে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এবং স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম কে বলে যে থানায় অভিযোগ দিলে আমরা তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবো। আর আপনারা যদি পারেন এলাকায় বসে আপস-মীমাংসা করলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। পরে স্থানীয় এলাকাবাসীর অনুরোধে গতকাল শুক্রবার বিকেলে। ছোট হরিশপুর ঈদগাঁও মাঠে ইউপি সদস্য শাহ আলম সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয় টি আপস-মীমাংসা করার উদ্দেশ্যে বসে। এসময় ২ পক্ষ থেকে ঘটনার বর্ণনা শুনে স্থানীয় ইউপি সদস্য নেতৃত্বে ২ পক্ষের ৩ জন ৩ জন ও ইউপি সদস্যের পক্ষ থেকে ২ জন দিয়ে মোট ৮ সদস্যের জুরিবোর্ড গঠন করে দেয় এবং ২ পক্ষে কে বলা হয় জুরিবোর্ড থেকে যেই সিদ্ধান্ত আসবে আপনারা কি মেনে নিবেন নাকি তখন ২ পক্ষ তাতে সম্মতি জানাই। পরে জুরিবোর্ড এর রায় ঘোষণা শেষ না হতেই মঞ্জুয়ারা ছেলে রনি ও আইয়ুব সহ আরো ৮/১০ জন মোঃ মতিউর রহমান (বাবু) কে হাতুড়ি ও চাপাতি দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয় এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে রনি ও আইয়ুব এর সহযোগীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

 

 

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম পুলিশে খবর দিলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং স্থানীয় এলাকাবাসী বাবু কি উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। বাবুর অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। শনিবার সকালে ভিকটিম এর ছেলে মোঃ সুজার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান। বাবুর মাথায় ৯ টি শেলাই ও পিঠে ১৩ টি শেলাই দেওয়া হয়েছে অবস্থা আশঙ্কাজনক। নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা কে বিষয় টি জানালে পুলিশ সুপারের নির্দেশে। শুক্রবার রাতেই এসআই মোঃ রাফসান জানি ইসলাম ও এএসআই মোঃ আক্কাস আলী এবং এএসআই মোঃ আব্দুল কাদের নেতৃত্বে। রনি ও জমসেদ কে সিংড়া এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। শনিবার দুপুরে মোঃ মতিউর রহমান বাবুর স্ত্রী বাদী হয়ে নাটোর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

এই রকম আরোও খবর