আজ- বৃহস্পতিবার, ২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Shotto Barta Logo

শিরোনাম

নাটোরে সাংবাদিক মাহাবুব এর উপর অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা

সত্যবার্তা ডেস্ক:

বাংলাদেশ কন্ঠ পত্রিকার প্রতিনিধি ও নাটোর কন্ঠ নিউজ পোর্টাল এর সম্পাদক এবং ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ খন্দকার মাহাবুুবুর রহমান সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন।

 

শনিবার বেলা ৩ টার দিকে সদর উপজেলার বাকশোর আশ্রায়ন প্রকল্প (দবির বাকশোর) এলাকায় তিনি এই হামলার শিকার হন। নাটোর স্বনির্ভর (ইউসিসি) এর নৈশ প্রহরী মোশারফ হোসেন তার ওপর চড়াও হয়ে মাথায় আঘাত করলে তিনি রক্তাক্ত জখম হন। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত বাংলা টিভির নাটোর প্রতিনিধি মেহেদী বাবু তাকে তাৎক্ষণিক উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে মাহাবুব শঙ্কামুক্ত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

 

সাংবাদিক মেহেদী বাবু এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খন্দকার মাহাবুব জানান, শনিবার দুপুরের পর পেশাগত দায়িত্ব পালনে তারা দু’জন বাকসোর আশ্রায়ন প্রকল্প এলাকায় যান। সেখানে সরকারী জায়গা দখলমুক্ত করে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রায়ন প্রকল্পের নির্মানার্ধীন ঘরের অগ্রগতির খোঁজ খবর নিতে যান। এলাকার লোকজনদের সাথে সরকারী ওই জায়গা দখলমুক্ত করার বিষয়ে কথা বলছিলেন। এসময় সরকারী ওই জায়গার দির্ঘদিনের দখলদার শাহ আলমের ছেলে মোশারফ ছুটে এসে সরকারী কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের উদ্দ্যেশ্য করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। সাংবাদিক খন্দকার মাহাবুব প্রতিবাদ করে গালাগালি না করার জন্য মোশারফ’কে অনুরোধ করেন। এসময় মোশারফ উত্তেজিত হয়ে আরো অশোভন ভাষায় গালাগালি দিতে থাকে এবং সাংবাদিক খন্দকার মাহাবুবের দিকে তেড়ে আসেন এবং তার হাতে থাকা স্যালো মেশিনের লোহার হাতল দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এতে মাহবুবের মাথা ফেটে রক্ত ঝড়তে থাকে এবং খন্দকার মাহাবুব মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। সাংবাদিক মেহেদী বাবু সহ স্থানীয়রা ছুটে এসে খন্দকার মাহাবুবকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান।

 

কর্তব্যরত চিকিৎসক ফাহমিদা লস্কর বলেন, সাংবাদিক মাহাবুবুর রহমানের মাথায় কঠোর আঘাতের কারনে ডিপ হয়েছে। তার মাথায় তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে তাকে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে।

 

 

এদিকে, খবর পাওয়ার পর হাসপাতালে ছুটে যান ইউনাইটেড প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হোসেন, সাবেক সভাপতি নবিউর রহমান পিপলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহমেদ, মোহনা টিভির নাটোর প্রতিনিধি মোঃ রাশেদুল ইসলাম, নাটোর ভিডিও জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়শনের সাধারণ সম্পাদক লিমন হোসেন, সত্য বার্তা নিউজ পোর্টাল এর প্রকাশক মোঃ মানিক পাশা সহ অন্যান্য সাংবাদিকরা। এসময় হামলাকারীকে দ্রুত আটকের জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ জানান সাংবাদিকরা।

 

 

এই বিষয়ে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, খবর পাওয়ার পর পরই পুলিশের একটি দল হাসপাতালে গিয়ে তার চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়ে ঘটনার বিস্তারিত জবানবন্দি নিয়েছেন। এ ব্যাপারে হামলাকারীকে আটক করতে ইতিমধ্যেই ডিবি এবং থানা পুলিশের দুটি টিম কাজ করছে।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

এই রকম আরোও খবর

সাক্ষাৎকার