আজ- রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Shotto Barta Logo

শিরোনাম

নির্মাণাধীন ব্রিজে ফাটল, ধামাচাপার চেষ্টা ঠিকাদার-প্রকৌশলীর

সত্যবার্তা ডেস্ক :

 

রংপুরের মিঠাপুকুরে নির্মাণাধীন ব্রিজে ফাটল দেখা দিয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ইতোমধ্যেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। তারপরও ঘটনাটি ধামাচাপার চেষ্টা করছেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় প্রকৌশল দফতর।

মিঠাপুকুর প্রকৌশল দফতর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা খোড়াগাছ ইউনিয়নের শেষপ্রান্তে মিলবাজার এলাকায় চলতি অর্থ বছরে ১৯ লাখ ৯৩ হাজার টাকায় ৬ দশমিক ৯ মিটার‌ দৈর্ঘ্য ৪ দশমিক ৮৮ মিটার প্রস্থ ব্রিজটি নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে

লালমনিরহাট জেলার ফাতেমা ট্রেডার্স নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ব্রিজটি নির্মাণ করছেন। গত বছরের নভেম্বরে শুরু হয়ে চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিলো।

স্থানীয়দের অভিযোগ, নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ব্রিজের কাজটি করা হয়েছে। একারণে, কাজ শেষ হওয়ার আগেই ফাটল দেখা দিয়েছে ব্রিজটিতে।

বায়ান্নবাজার সওদাগরপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেন বলেন, ব্রিজটি নির্মাণ করতে ঠিকাদার নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করেছেন। এর কারণে ফাটল দেখা দিয়েছে।

আরেক গ্রামবাসী ইদ্রিস আলী বলেন, ঠিকাদার স্থানীয় লোকজনকে ম্যানেজ করে কাজটি শেষ করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু, প্রতিবাদের মুখে তারা পিছু হটে।

খোড়াগাছ ইউনিয়নের পদাগঞ্জ ও পাইকারের হাট হয়ে মিলবাজার পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা। প্রায় ২০ গ্রামের মানুষ রংপুর সদরের যাওয়া-আসা করতে এই রাস্তাটি ব্যবহার করে। রাস্তাটির তিন মাথা পাইকড়েরতল এলাকায় নির্মাণ হচ্ছে ব্রিজটি। নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই বিভিন্ন স্থানে দেখা দিয়েছে ফাটল। অনেক ফাটল রাতের আধারে সিমেন্ট দিয়ে প্রলেপ দিয়েছেন ঠিকাদার। তারপরও কয়েকটি স্থানে দৃশ্যমান রয়েছে ফাটল।

স্থানীয় আব্দুল মতিন বলেন, ব্রিজটি নির্মাণ করতে ঠিকাদার লুকোচুরি করছেন। রাতের আধারে কাজ করেছেন তারা। স্থানীয় কয়েকজন নিয়ে কাজটি শেষ করতে চেয়েছেন ঠিকাদার। কিন্তু, এলাকাবাসী প্রতিবাদের মুখে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছেন।

এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন, নির্মাণাধীন ব্রিজের ফাটলের বিষয়টি ধামাচাপার চেষ্টা করছেন ঠিকাদার ও স্থানীয় প্রকৌশলী। তাই, বিষয়টি নিয়ে তোড়জোর নেই কারো।

ইতোমধ্যে, ব্রিজের ফাটল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সরকার, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। কিন্তু, কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। এলাকাবাসী ফাটল দেখা দেয়া ব্রিজটি ভেঙ্গে নতুন করে নির্মাণ কাজ করার জন্য দাবি জানিয়েছেন।

খোড়াগাছ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। জনগণের সাথে আমরা দাবি সুষ্ঠুভাবে নতুন করে ব্রিজটি নির্মাণ করা হোক।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ফাতেমা ট্রেডার্সের কর্ণধার মিজানুর রহমান মিজান বলেন, নির্মাণ কাজে একটু সমস্যা হয়েছিলো। আমি উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে দেখা করে কথা বলেছি। তিনিই সব কিছু দেখবেন।

উপজেলা প্রকৌশলী আখতারুজ্জামান বলেন, ব্রিজটির সাইডে স্কেবেটর দিয়ে মাটি দেয়ার সময় ফাটল দেখা দিতে পারে। আমরা বিষয়টি তদারকি করছি। পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন :

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

এই রকম আরোও খবর